ঢাকা মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৩, ১৮ মাঘ ১৪২৯

বাংলাদেশের মাটিতে টানা দুই ওডিআই সিরিজ হার ভারতের

ক্রীড়া ডেস্ক | প্রকাশিত: ৮ ডিসেম্বর ২০২২ ০০:২২; আপডেট: ৮ ডিসেম্বর ২০২২ ০০:২৬

 

সর্বশেষ ২০১৫ সালে বাংলাদেশের মাটিতে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে এসেছিল ভারতীয় দল। সেবার তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে মাহেন্দ্র সিং ধোনির শক্তিশালী ভারতের বিপক্ষে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতেছিল মাশরাফী বিন মর্তুজার নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ দল।

 

দীর্ঘ ৭ বছর পর আবারও বাংলাদেশ সফরে এসেছে রোহিত শর্মার নেতৃত্বাধীন ভারত। সফরে প্রথম ওয়ানডেতে মেহেদি হাসান মিরাজ ও মোস্তাফিজুর রহমানের শেষ উইকেটের অবিশ্বাস্য জুটিতে ১ উইকেটের জয় পেয়েছিল টাইগাররা। এবার দ্বিতীয় ম্যাচেও ৫ রানের শ্বাসরুদ্ধকর জয় তুলে নিয়েছে লিটন দাসের দল। যার ফলে ঘরের মাটিতে এক ম্যাচ হাতে রেখেই টানা দ্বিতীয় সিরিজ জিতল বাংলাদেশ।

বুধবার (৭ ডিসেম্বর) ‘হোম অব ক্রিকেট’খ্যাত মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দিবারাত্রির দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং নেমেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু দলীয় ৬৯ রানের মধ্যেই ৬ উইকেট হারিয়ে ফেলে অল্পতেই গুঁটিয়ে যাওয়ার শঙ্কায় পড়েছিল টাইগাররা।

 

তবে ১৪৮ রানের সপ্তম উইকেটে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রানের জুটি গড়ে দলকে রক্ষা করেন অভিজ্ঞ মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও মেহেদী হাসান মিরাজ জুটি। দলীয় ২১৭ রানে ৯৬ বলে চার বাউন্ডারিতে ৭৭ রান করে ফেরেন রিয়াদ। এদিন ক্যারিয়ারে ২৭তম ফিফটি করেন মাহমুদউল্লাহ।

 

অপরপ্রান্ত আগলে রেখে শেষ পর্যন্ত ভারতের বোলারদের তুলোধুনো করেন মিরাজ। ইনিংসের শেষ বলে ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি তুলে নেন ৮৩ বলে ৮ চারে ও ৪ ছয়ে। এতে ঠিক ১০০ রানে অপরাজিত থাকেন প্রথম ম্যাচ জেতানো এই অলরাউন্ডার। ফলে নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে টাইগারদের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৭ উইকেটে ২৭১ রান।

 

জয়ের জন্য ২৭২ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ভারতকে শুরুতেই ব্যাকফুটে করে দিয়েছিল বাংলাদেশি বোলাররা। দশম ওভারের মধ্যেই বিরাট কোহলি, শিখর ধাওয়ান ও ওয়াশিংটন সুন্দনের উইকেট তুলে নেয় টাইগার বোলাররা। এরপর ৬৫ রানে ৪ উইকেট হারায় লোকেশ রাহুলের বিদায়ে।

 

যখন ভারতীয়রা ব্যাকফুটে চলে গিয়েছিল, ঠিক তখন হাল ধরেন শ্রেয়াশ আইয়ার এবং অক্ষর প্যাটেল। তারা দুজনে ১০৭ রানের অনবদ্য জুটি গড়ে ভারতকে জয়ের আশা দেখান। কিন্তু আবারও ত্রাতার ভূমিকায় মিরাজের জাদু। তার বলে আফিফের হাতে ক্যাচ তুলে ১০২ বলে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৮২ রান করে ফেরেন আইয়ার।

এরপর অক্ষর প্যাটেল ৫৬, শার্দুল ঠাকুর ৭ ও দিপক চাহার ১১ রান করে আউট হয়ে যান। তবে ইনজুরির কারণে প্রথমে না নামা অধিনায়ক রোহিত শর্মা ২৮ বলে ৫১ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলে শেষ বলে ছক্কার প্রয়োজনেও জয় এনে দিতে পারেননি। ফলে বাংলাদেশ এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জিতে নিলো।

বোলিংয়ে মেহেদী হাসান মিরাজ, এবাদত হোসেন ও সাকিব আল হাসান ২টি করে উইকেট নেন। ১টি করে উইকেট পান মোস্তাফিজুর রহমান এবং মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

 

 

 

 




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top