ঢাকা মঙ্গলবার, ৪ অক্টোবর ২০২২, ১৯ আশ্বিন ১৪২৯

এসএসসি পরীক্ষার প্রধম দিনেই অনুপস্থিত ৩৩৮৬০, বহিষ্কৃত ২৬

নিউজ ডেস্ক | প্রকাশিত: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১০:০৮; আপডেট: ৪ অক্টোবর ২০২২ ০৯:৫২

 

এবারের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১৯ লাখ ৩৯ হাজার ৭১ জন। মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল কেন্দ্রে বৃহস্পতিবার এসএসসি পরীক্ষা শুরুর দিনে পরীক্ষার্থীর অনুপস্থিতি দেখা যায়। 

মহামারী ও বন্যার কারণে সাত মাস পিছিয়ে যাওয়া চলতি বছরের এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার প্রথমদিনে বৃহস্পতিবার সারাদেশে অনুপস্থিত ছিল ৩৩ হাজার ৮৬০ জন পরীক্ষার্থী। আর অসদুপায় অবলম্বনের কারণে বহিষ্কার হয়েছে ২৬ শিক্ষার্থী। আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক তপন কুমার স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

দেশের তিন হাজার ৬৮১টি কেন্দ্রে এবারের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১৯ লাখ ৩৯ হাজার ৭১ জন। এর মধ্যে পরীক্ষায় অংশ নিয়েছেন ১৯ লাখ ৫ হাজার ২১১ জন। তার মানে অনুপস্থিত ছিল ৩৩ হাজার ৮৬০ জন, শতাংশের হিসেবে যা ১ দশমিক ৭৫ শতাংশ।

প্রথম দিন এসএসসিতে বাংলা (আবশ্যিক) প্রথম পত্র ও সহজ বাংলা প্রথম পত্রের পরীক্ষা হয়েছে। আর মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে দাখিলে কুরআন মাজিদ ও তাজভিদ এবং কারিগরি বোর্ডে ভোকেশনালে বাংলা-২ (১৯২১) এবং বাংলা-২ (১৭২১) বিষয়ের পরীক্ষা হয়েছে। প্রথম দিনের পরীক্ষায় কারিগরি বোর্ডে সবচেয়ে বেশি ৪ দশমিক ২৩ শতাংশ এবং মাদ্রাসা বোর্ডে ৪ দশমিক ২১ শতাংশ পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিলেন। কারিগরি বোর্ডে ১২ জন এবং মাদ্রাসা বোর্ড থেকে ৮ জন পরীক্ষার্থী বহিষ্কার হয়েছেন।

ঢাকা বোর্ডে দশমিক ৯৯ শতাংশ, রাজশাহীতে দশমিক ৯১ শতাংশ, কুমিল্লায় ১ দশমিক ৫৫ শতাংশ, যশোরে ১ দশমিক ১৩ শতাংশ, চট্টগ্রামে ১ দশমিক ২০ শতাংশ, সিলেটে দশমিক ৯৯ শতাংশ, বরিশালে ১ দশমিক ১৪ শতাংশ, দিনাজপুরে ১ শতাংশ এবং ময়মনসিংহ বোর্ডে দশমিক ৯১ শতাংশ পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিলেন।

চট্টগ্রাম ও ময়মনসিংহ বোর্ডে ২ জন করে মোট ৪ জন এবং ঢাকা ও কুমিল্লা বোর্ডে ১ জন করে মোট ২ জন পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে।দেশে সাধারণত ফেব্রুয়ারি মাসে মাধ্যমিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছিল। করোনাভাইরাসের কারণে পুরো শিক্ষাসূচি পাল্টে যাওয়ায় গত বছর সাড়ে আট মাস পিছিয়ে নভেম্বরে এ পরীক্ষা নেয় সরকার।

একই কারণে এবার সাড়ে চার মাস পিছিয়ে গত ১৯ জুন এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরুর কথা ছিল। বিভিন্ন জেলায় বন্যার কারণে স্থগিত হওয়া সে পরীক্ষা শুরু হল আরও তিন মাস পর।

মহামারীতে প্রস্তুতিতে ঘাটতি থাকায় এ বছর পুনর্বিন্যস্ত পাঠ্যসূচিতে পরীক্ষা নেওয়া হচ্ছে। ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় এবং বিজ্ঞান- এসব বিষয়ে পরীক্ষা না নিয়ে সাবজেক্ট ম্যাপিংয়ের মাধ্যমে মূল্যায়ন করা হবে।

 




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top