ঢাকা সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

হজে যাওয়ার আগে যেসব অসিয়ত ও নসিহত জরুরি

ডেস্ক রিপোর্ট | প্রকাশিত: ৯ জুন ২০২২ ২৩:৪২; আপডেট: ২৮ নভেম্বর ২০২২ ১১:৪০

শারীরিক সক্ষমতা ও আর্থিক ক্ষমতাবান ব্যক্তির ইবাদাত হজ। যাদের সামর্থ্য আছে, তাদের জন্য জীবনে একবার হজ সম্পাদন করা ফরজ। তাই যখনই কোনো মুমিন মুসলমান হজে যাওয়ার ইচ্ছা পোষণ করেন, তখন তাঁর উচিত, হজে যাওয়ার আগে নিজ পরিবার-পরিজন এবং সঙ্গী-সাথীসহ প্রয়োজনীয় ব্যক্তিদের গুরুত্বপূর্ণ উপদেশ, পরামর্শ ও সঠিক পথে চলার কথা বলা। হজযাত্রীর জন্য এ বিষয়গুলো যেমন জরুরি, তেমনি যারা দেশে-বাড়িতে দায়িত্বে থাকবেন তাদের জন্য জরুরি।

হজে যাওয়ার আগে উপদেশ

হজ-ওমরাহ পালনের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হওয়ার আগেই পরিবার-পরিজন, আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবদের তাকওয়া অবলম্বন তথা আল্লাহর ভয়ের ব্যাপারে উপদেশ দেওয়া জরুরি। আল্লাহর নির্দেশ পালন এবং তাঁর নিষিদ্ধ কার্যাবলি থেকে বিরত থাকার উপদেশ দেওয়া। দ্বীন ও ইসলামের ওপর জীবন পরিচালনার উপদেশ দেওয়া। যার যার দায়িত্ব সম্পর্কে সচেতন থাকার নসিহত করাও জরুরি।

হজের যাওয়ার আগে অসিয়ত বা পরামর্শ

হজ-ওমরায় যাওয়ার আগে হজযাত্রী একান্ত করণীয় হলো- নিজের লেনদেন, পাওনা-দেনা পরিশোধ করে যাওয়া। কোনো কারণে কারো সঙ্গে যদি দেনা-পাওনা থাকে এবং তা তাৎক্ষনিক পরিশোধ করার কোনো সুযোগ না থাকে; তবে সে ক্ষেত্রে তাঁর সম্পদের ওয়ারিশদের এ বিষয়ে ডেকে বা লিখিতভাবে জানিয়ে যাওয়া। ঋণ বা যে কোনো বিষয়ের অসিয়তের ব্যাপারে সাক্ষী রাখাও বেশি জরুরি কাজ। যা হজে যাওয়ার আগেই সম্পন্ন করা আবশ্যক।

হজে যাওয়ার আগেই তাওবা করা

হজ-ওমরার যাত্রীদের জন্য আবশ্যক কাজ হলো- সব ধরনের অন্যায় কাজ থেকে পরিপূর্ণ তাওবা করা। জীবনের ঘটে যাওয়া সব অন্যায়-অপরাধের কথা স্মরণ করে, জীবনে আর কোনো অন্যায় না করার নিয়ত করে, আল্লাহর কাছে পরিপূর্ণ তাওবা করা একান্ত জরুরি। এ প্রসঙ্গে আল্লাহ তাআলা বলেন-

‘হে মুমিনগণ! তোমরা সকলেই আল্লাহর কাছে তাওবা কর; সম্ভবত তোমরা কামিয়াব হবে। (সুরা নুর : আয়াত ৩১)

বিশেষ করে হজ ও ওমরা পালনে ইচ্ছুক ব্যক্তি নিজে তাওবা করবে এবং তার পরিবার-পরিজন, আত্মীয়-স্বজন এবং সঙ্গী-সাথীদেরকেও তাওবার উপদেশ দেবে। উল্লেখিত উপদেশ-পরামর্শ ও তাওবা উভয়ের দুনিয়া ও পরকালের সফলতার জন্য খুবই জরুরি।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহর সব হজযাত্রীকে হজে যাওয়ার আগে উল্লেখিত বিষয়গুলো যথাযথ গুরুত্বের সঙ্গে নেওয়ার তাওফিক দান করুন। নিজ নিজ পরিবার-প্রতিবেশিকে নসিহত, অসিয়ত ও তাওবার দিকে উদ্বুদ্ধ করার তাওফিক দান করুন। আমিন।




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top