ঢাকা মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১১ কার্তিক ১৪২৮

মোস্তাফিজ স্পেশাল বোলার : রাজস্থান অধিনায়ক

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশিত: ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১০:১৩; আপডেট: ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১০:১৬

 

সুপার টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট উত্তাপ যাকে বলে শেষ ওভারের নাটাকীয়তায় জয় পেলো রাজস্থান রয়েল। মাত্র কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই সম্পূর্ণ উল্টে গেলো পাশার দানের মতো। জিততে থাকা পাঞ্জাবকে হারতে হলো রাজস্থানের কাছে। 

 

 

জয়ের জন্য শেষ ওভারে পাঞ্জাবের প্রয়োজন ছিল মাত্র ৪ রান কিন্তু সেই চার রানই তুলতে দেয়নি রাজস্থানের তেয়াগী। ম্যাচের ১৯তম ওভারে মোস্তাফিজের ৪ রান দেয়াটাও সাহস জুগিয়েছে তেয়াগিকে নিশ্চই।  

 

রাজস্থান অধিনায়ক সান্জু স্যামসন তার দলের মোস্তাফিজ আর তেয়াগীকে অসাধারণ বোলার হিসেবে ঘোষনা দিলেন। 

 

এই ম্যাচে জয়ের জন্য পাঞ্জাব ১৮৬ রানের লক্ষ্যে শেষ পর্যন্ত ছুতে ব্যর্থ হয়। ২ রানের জয় দিয়ে রাজস্থান পয়েন্ট টেবিলে কলকাতাকে টপকে পঞ্চম স্থানে নিজেদের নিয়ে গেলেন।  

 

কলকাতা সাকিবকে একাদশে রাখেনি মন ভেঙেছে টাইগার ক্রিকেট ভক্তদের। তবে সেই কাজ করেনি রাজস্থান রয়েল আস্থা রেখেই একাদশে রাখলেন ফিজ খ্যাত মোস্তাফিজকে। 

 

দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে টি-টোয়েন্টি আদর্শ পিচে পাঞ্জাব টস জিতে ব্যাটিংয়ে পাঠায় রাজস্থান রয়েলকে। ব্যাটিংয়ে নেমেই ক্যারিবী লিগে বিধ্বংসী ফর্মে থাকা ইভেন লুইস রাজস্থানকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেয়। লুইসের যোগ্য সাপোর্ট দেন আরেক ওপেনার জয়সুয়াল। ওপেনিং জুটি ভাঙ্গে দলীয় ৫৪ রানে।  ২১ বলে ৭টি চার ১টি ছয় ৩৬ রান করেন লুইস। পাওয়ার প্লেতে রাজস্থান ৫৭ রান সংগ্রহ করে।

 

জয়সুয়াল ৩৬ বলে ৪৯ রান। লিভেন স্টোনের ১৭বলে ২৫, মুহিতের ১৭ বলে ৪৩রানের সুবাদে রাজস্থান রয়েল নির্ধারিত ২০ওভারে ১৮৬রান করে।

 

ফিল্ডিয়ে নেমেই বাজে ফিল্ডিংয়ের নজির স্থাপন করে রাজস্থান। ক্যাচ মিসের মহরা পাঞ্জাবের বিপক্ষে। পাঞ্জাবের অধিনায়ক কে এল রাহুল নতুন জীবন পেয়েই দুর্দান্ত শুরু করেন। পাঞ্জাবের ওপেনিং জুটি ভাঙে ১২০ রানে। পাঞ্জাবের ১১ ওভারে ১২০রানের সংগ্রহে কঠিন চাপে পড়ে রাজস্থান রয়েল। 

 

৩৩বলে কেএল রাহুলের ৪৯ আর মায়াক আগরওয়ালের সংগ্রহ ৬৭ রান। পাঞ্জাবের জয়ের পথে সঠিক পথেই নিয়ে যাচ্ছিলেন ক্যারিবীয়ান নিকোলাস পুরান। কিন্তু ছন্দপতন ঘটে পুরানের ২২ বলে ৩২রানে ফিরে যাওয়ার পর। পুরানের আউটের পর পরবর্তী ব্যাটসম্যানরা আর পারেনি। 

ওপর প্রান্তে মাকরাম শুধু নিরবে চেয়েই থাকলো। দিপক হুদা আর এ্যালন সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়ে দলকে হতাশই করলেন। নিশ্চিত জয় বঞ্চিত হলো পাঞ্জাব কিংস।   

 

রাজস্থানের ১৬কোটির ক্রিস মরিস ৪ ওভারে ৪৭রান দেন। এদিন পাঞ্জাবের ব্যাটিংয়ের কাছে রাজস্থানের সকল বোলারে অবস্থাই খারাপ ছিল। সব বোলারকেই খরচের হিসেবটি বড়ই ছিল। 

 

দূর্ভাগ্য বলতে হবে মোস্তাফিজকে কারণ তার ওভারেই কেএল রাহুলের ক্যাচ মিস করে নতুন জীবন পান। প্রথম ওভারে দুর্দান্ত বলকে ফিজ মাত্র ৪রান দেন। পরের তিন ওভারে দেন আরও ২৬রান, ৪ওভারে মোট ৩০রান দেন ফিজ। ম্যাচের ১৯তম ওভারে ফিজের ৪ রান দেওয়াতেই জয়ের আশাঁ জাগিয়ে রাখে। আর জয়টি আসে তেয়াগীর হাত ধরে। শেষ ওভারে ২রান খরচে তুলে নেন পাঞ্জাবের ২উইকেট আর তাতেই জয় নিশ্চিত হয়ে যায় রয়েলসদের।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top